সারাদেশ

কুড়িগ্রাম সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফে’র সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে সৌজন্য বৈঠক

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : 3 September 2020 , 2:12:20 প্রিন্ট সংস্করণ

কুড়িগ্রাম সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফে’র  সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে সৌজন্য বৈঠক

কুড়িগ্রাম জেলার সাথে ভারত সীমান্ত এলাকায় বিজিবি-বিএসএফ এর নজরদারী বৃদ্ধি করা, চোরাচালান প্রতিরোধ, নারী ও শিশু পাচার, অবৈধ অনুপ্রবেশ, মাদক পাচার বন্ধ করা এবং আন্তঃসীমান্ত অপরাধ হ্রাস করার বিষয়ে বুধবার  সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে সোয়া ২ঘন্টা ব্যাপী সৌজন্য বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কুড়িগ্রাম ২২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

কুড়িগ্রাম ২২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান জানান, বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত ভুরুঙ্গামারী’র সোনাহাট সীমান্তের আন্তরজাতিক সীমান্ত পিলার ১০০৮ এর নিকট ভারতের অভ্যন্তরে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বিজিবির ১৪ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে দেন রংপুর সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আলীমুল করিম চৌধুরী এবং বিএসএফে’র ১২ সদস্যের নেতৃত্বদেন ধুবরী সেক্টর এর ডিআইজি জে সি নায়ক। শুরুতেই ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপ্রতি প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে সৌজন্য সাক্ষাতের বাকী কার্যক্রম শুরু করা হয়। এ সময় বিজিবি ও বিএসএফ এর ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক, ষ্টাফ অফিসার ও সংশ্লিষ্ট এলাকার কোম্পানী কমান্ডারগণ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরো জানান, অত্যন্ত সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে সৌজন্য সাক্ষাতের সময় ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বিদ্যমান শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষ্যে সীমান্ত এলাকায় সৃষ্ট যেকোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা একে অপরের সার্বিক সহযোগিতা ও যোগাযোগের মাধ্যমে দ্রুত সমাধান করে বিজিবি-বিএসএফ এর মধ্যে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সুসম্পর্ক বজায় রাখার ব্যাপারে উভয় পক্ষ একমত হন। এছাড়া সীমান্ত এলাকায় বিজিবি-বিএসএফ এর নজরদারী বৃদ্ধি করা, চোরাচালান প্রতিরোধ, নারী ও শিশু পাচার, অবৈধ অনুপ্রবেশ, বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির সমর্থনে মাদক পাচার বন্ধ করা এবং আন্তঃসীমান্ত অপরাধ হ্রাস করার বিষয়ে ফলপ্রসু আলোচনা করা হয়।

আরও খবর

Sponsered content

error: ছি ! ছি !! কপি করার চেষ্টা করবেন না ।