July 5, 2022, 1:47 pm
শিরোনামঃ
তারাগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুৎ লোডশেডিংয়ে জনজীবন বিপর্যস্ত- জ্বালানি সংকটে উৎপাদনে বিঘ্ন উলিপুরে পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্ট্রের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ বাংলাদেশ কেমিস্টস্ এন্ড ড্রাগিস্টস্ সমিতি তারাগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি আকতার সম্পাদক এমদাদুল কৃষি কর্মকর্তা উর্মি তাবাসসুমের অবহেলায় ঝিমিয়ে গেছে তারাগঞ্জের কৃষিখাত লালমনিরহাটে প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যেও এমপি’র উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন রাণীশংকৈলে কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি রহিম-সাধারণ সম্পাদক দ্বিগেন্দ্র উলিপুরে ৩’শ বন্যার্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ উলিপুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু কুড়িগ্রামে বাবার পরকীয়ার জেরে ছেলে বাবলু হত্যা মামলায় পাল্টাপাল্টি মানব বন্ধন কুড়িগ্রামে সহায়তা বানভাসিদের পাশে বিন নেটওয়ার্ক ফাউন্ডেশন

মধুখালীতে সহকারী শিক্ষক কর্তৃক শিশুর শ্লিতাহানীর চেষ্টা

শাহজাহান হেলাল, ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ
  • সময় : Wednesday, June 1, 2022
  • 76 ভিউ

ফরিদপুরের মধুখালীতে গোপালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোক্তার হোসেন মুকুল কর্তৃক ৬ষ্ঠ শ্রেনির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সরেজমিন ও ছাত্রীর দাদা বাদি হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি বরাবর লিখিত অভিযোগ পত্র থেকে জানা গেছে।
লিখিত অভিযোগ পত্রে তিনি উল্লেখ করেন, ২৬ মে বৃহস্পতিবার ভিক্টিমের ছোট ভাই বই হারিয়ে ফেলে, বই আনার জন্য স্কুলে যায় ৬ষ্ঠ শ্রেণী পুড়ুয়া শিক্ষার্থী। স্কুলের লাইব্রেরীতে তখন একাকি বসে থাকা মোক্তার হোসেন মুকুল মাষ্টারের নিকট ছোট ভাইয়ের বই হারিয়ে যাওয়ার কথা ও বই চাইলে বই দেবার কথা বলে ছাত্রীকে বিদ্যালয়ের ছাদে নিয়ে যায় মুকুল মাষ্টার।
বই দেওয়ার পরিবর্তে মুকুল মাষ্টার শিশু শিক্ষার্থী (১১)কে একাকী পেয়ে জামার পিছনের চেন খুলে ফেলেন। সুযোগ বুঝে ছাত্রী দৌঁড়িয়ে নিজেকে মুক্ত করে বিষয়টি পরিবারকে অবগত করে। পরে এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয়দের মধ্যে বিরুপ পরিস্থিতি সৃষ্ঠি হয়।
অভিযুক্ত মোক্তার হোসেন মুকুল মাষ্টারকে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করে বলেন আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও একটি মহল ষড়যন্ত্র করেছেন। বিদ্যালরয়র প্রধান শিক্ষিকা রোজিনা বেগম সাংবাদিকের কাছে অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা শিকার করেছেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসার সিরাজুল ইসলাম বলেন বিষয়টির তদন্ত চলছে, প্রমানিত হলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আশিকুর রহমান চৌধুরী অভিযোগ পাওয়ার বিষয়ে বলেন তাকে প্রত্যাহার করে অফিসে সংযুক্ত করা হয়েছে । তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক মোক্তার হোসেন মুকুল বিদ্যালয়ে যেতে পারবেন না । অভিযোগ প্রমানিত হলে চাকুরী চুত্যসহ প্রয়োজনীয় বিভাগীয় ব্যবস্থা তার বিরুদ্ধে গ্রহন করা হবে।

সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও খবর
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Designed By BONGGONEWS.COM
themesba-lates1749691102