সারাদেশ

মরে গেছে ভেবেই ওয়াহিদাকে ফেলে রেখে যায় সন্ত্রাসীরা

  বঙ্গ ডেস্ক 4 September 2020 , 8:46:02 প্রিন্ট সংস্করণ

মরে গেছে ভেবেই ওয়াহিদাকে ফেলে রেখে যায় সন্ত্রাসীরা

সরকারি বাসভবনে ঢুকে রাতের আঁধারে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমকে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে সন্ত্রাসীরা। এসময় তাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসলে তার ৭০ বছর বয়সী বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকেও জখম করে হামলাকারীরা।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুরে কমিউনিটি প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সিসিইউ নেওয়ার পর অবস্থার আরও অবনতি ঘটে। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় আনা হয় তাকে। ঢাকার শেরেবাংলা নগরে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার ক্ষত অনেক গভীর। তাকে অবস্থা উন্নতি না হলে অপারেশনও করা যাবে না। বিদেশে নেয়ারও পরিস্থিতি নেই। তবে রাতে যেন অপারেশন করা যায়, সে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেনও বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

জানা গেছে, রাত ৩টার সময় ওয়াহিদা খানমের বাসায় ‍ঢুকে হামলাকারীরা। গেটে দারোয়ানকে বেঁধে ফেলে তারা। পরে বাসার পেছনে গিয়ে মই দিয়ে উঠে ভেনটিলেটর দিয়ে বাসার ভেতরে প্রবেশ করে। ভেতরে ঢুকে ভারি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও আঘাত করে ইউএনও ওয়াহিদাকে গুরুতর আহত করে হামলাকারীরা। মেয়েকে বাঁচাতে এলে তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকে (৭০) জখম করে। তারা অচেতন হয়ে পড়লে মৃত ভেবে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ভোরে স্থানীয়রা টের পেয়ে তাদের উদ্ধার করেন। পুলিশ, স্থানীয় কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

আরও খবর

Sponsered content

error: ছি ! ছি !! কপি করার চেষ্টা করবেন না ।