July 7, 2022, 11:21 am
শিরোনামঃ
উলিপুরে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি উদ্বোধন উলিপুরে বন্যার্তদের মাঝে খাদ্য সহায়তা তারাগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুৎ লোডশেডিংয়ে জনজীবন বিপর্যস্ত- জ্বালানি সংকটে উৎপাদনে বিঘ্ন উলিপুরে পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্ট্রের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ বাংলাদেশ কেমিস্টস্ এন্ড ড্রাগিস্টস্ সমিতি তারাগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি আখতার সম্পাদক এমদাদুল কৃষি কর্মকর্তা উর্মি তাবাসসুমের অবহেলায় ঝিমিয়ে গেছে তারাগঞ্জের কৃষিখাত লালমনিরহাটে প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যেও এমপি’র উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন রাণীশংকৈলে কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি রহিম-সাধারণ সম্পাদক দ্বিগেন্দ্র উলিপুরে ৩’শ বন্যার্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ উলিপুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

স্কুল পরিষ্কার করতে বলায় প্রধান শিক্ষককে পেটালেন দফতরি

মোস্তাকিম বিল্লাহ রাজু, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
  • সময় : Friday, May 28, 2021
  • 388 ভিউ
স্কুল পরিষ্কার করতে বলায় প্রধান শিক্ষককে পেটালেন দফতরি দফতরি রাকিব ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে স্কুলের শ্রেণিকক্ষ খুলে পরিষ্কার করতে বলায় এক প্রধান শিক্ষককে মারধর করেছেন দফতরি। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার পাগলা থানার বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিলুফা খানম।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক নিলুফা খানম দফতরি রাকিবকে স্কুলে আসতে বলেন। রাকিব আসার পর তাকে শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করতে বলেন প্রধান শিক্ষক। কারণ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় কক্ষগুলোতে ধুলোর আস্তরণ পড়ে গেছে। তবে রাকিব শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করতে সরাসরি অপারগতা প্রকাশ করেন। বন্ধের সময় কোনো রকম কাজ করতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। এরপর কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে প্রধান শিক্ষক নিলুফার মাথায় ঘুষি মেরে বসেন রাকিব। এ সময় রাকিবের ভাই এসেও প্রধান শিক্ষককে গালাগালি করেন।

মারধরের শিকার প্রধান শিক্ষক নিলুফা খানম বলেন, যে কোনো সময় তো স্কুল ওপেন হতে পারে। সেজন্য আমরা স্কুলের খোঁজখবর নেওয়ার জন্য তিন শিক্ষক স্কুলে যাই। এ সময় স্কুল অপরিষ্কার দেখে দফতরি রাকিবকে ফোন দেই। কিন্তু সে না আসায় লোক পাঠিয়ে তাকে আসতে বলা হয়। সে আসার পর আমি তাকে বলি স্কুলের সব শ্রেণিকক্ষ তো অপরিষ্কার। যে কোনো সময় টিইও কিংবা এটিইও স্যার স্কুল পরিদর্শনে আসতে পারেন। এসে এই অবস্থা দেখলে তোমারও চাকরি যাবে, আমাকেও শোকজ করবে। এগুলো শুনে সে আমাকে বলে, ‘তোর কথায় কি আমার স্কুল খুলা লাগবো? এই লকডাউনে স্কুল খোলা হয় নাই, তাইলে স্কুল পরিষ্কার করব কেন?’

নিলুফা খানম বলেন, মূল বিষয় হচ্ছে সে নেশা করে তারপর ঘুমায়। লোক পাঠিয়ে ঘুম থেকে তুলে আনায় আমার প্রতি সে চড়াও হয়েছে। সে আমার মাথায় ঘুষি মেরেছে, মারধর করেছে সবার সামনে। এ সময় পাগলা থানার এসআই আব্বাস সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। তিনিই আমাকে উদ্ধার করেছেন এবং থানায় নিয়ে গেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পাগলা থানার ওসি মো. রাশেদুজ্জামান বলেন, এ ঘটনার পর স্থানীয় শিক্ষক সমিতির যারা আছেন তারা টিইও এবং এটিইওর কাছে অভিযোগ দিয়েছেন। এখন তারা যদি থানায় অভিযোগ দেন তাহলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও খবর
© All rights reserved © 2019 LatestNews
Designed By BONGGONEWS.COM
themesba-lates1749691102